বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মধ্য আফ্রিকীয় প্রজাতন্ত্রের এন্দেলে এবং ব্রিয়া শহরে বিদ্রোহীদের আক্রমণ

[অন্য কিছু বলা না হলে সমস্ত লিংক ফরাসি নিবন্ধে নিয়ে যাবে]

এই গত কয়েক সপ্তাহ ধরে এন্দেলে এবং ব্রিয়া শহরের উপর আক্রমণ করে বিদ্রোহীরা মধ্য আফ্রিকীয় প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রপতি ফ্রাঁসোয়া বোজিজের শাসনকে হুমকি দিচ্ছে। উল্লেখযোগ্য হারে অসামরিক স্থানান্তর ঘটানো এই নতুন নতুন আক্রমণের ঢেউ ২০০৭ সালে স্বাক্ষরিত শান্তি চুক্তিকে কার্যকরভাবে নাকচ করে দিয়েছে।

বিদ্রোহ আক্রান্ত এন্দেলে

১০ই ডিসেম্বর, ২০১২ তারিখে ন্দেলে শহর ঐক্যবদ্ধ গণতান্ত্রিক বাহিনীর ইউনিয়ন (ইউডিএফও) পরিচালিত জন্যে একটি আক্রমণের শিকার হয়েছে:

Une faction rebelle de l'UFDR, dirigée par Michel Djotodia, a pris d'assaut la ville de Ndélé, qui compte 15. 000 à 20. 000 habitants, ainsi que celles de Sam Ouandja et d'Ouadda, situées dans le nord-est du pays (à 200 km de Ndélé), une région où l'armée n'est pas ou peu présente.

Ndélé, carrefour du Nord près de la frontière tchadienne et par où passent de nombreux convois entre le Soudan et le Cameroun, avait été le théâtre d'affrontements violents entre différentes rébellions et l'armée entre 2007 et 2010

মিচেল জোতোদিয়ার নেতৃত্বাধীন ইউডিএফও’র একটি বিদ্রোহী উপদল এন্দেলে শহর (যার অধিবাসী সংখ্যা ১৫ থেকে ২০ হাজার) এবং দেশটির উত্তর-পূ্র্বের (ন্দেলে থেকে ২০০কিমি দূরে) শহর উয়াঞ্জা এত দে’উয়াদ্দা – যে অঞ্চলে সেনাবাহিনী বস্তুতঃ অস্তিত্বহীন – অবরোধ করেছে।

সুদান এবং ক্যামেরুনের মাঝ বরাবর দিয়ে দলে দলে চাদ সীমান্তের কাছাকাছি উত্তরের মিলনস্থল এন্দেলেতে গিয়ে পুরো ২০০৭ এবং ২০১০ সাল জুড়ে বিভিন্ন বিদ্রোহী গ্রুপ এবং সেনাবাহিনীর মধ্যে সংঘটিত সহিংস সংঘাত দেখেছে।

শান্তি অপারেশন বিষয়ক গবেষণা নেটওয়ার্ক (আরওপি) রিপোর্ট করেছে  যে সেনাবাহিনী পুনরায় শহরটির নিয়ন্ত্রণ গ্রহণে সফল হয়েছে:

Les forces gouvernementales « ainsi que les forces amies ont promptement réagi pour reprendre dans les délais raisonnables le contrôle de la situation et rétablir l'ordre et la quiétude des citoyens », a indiqué le porte-parole du ministère, le lieutenant-colonel Jean Ladawa.

সরকারী বাহিনীর “পাশাপাশি বন্ধুভাবাপন্ন বাহিনীগুলো যুক্তিসঙ্গত সময়ের মধ্যে পুনরায় নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ এবং নাগরিকদের মধ্যে শৃঙ্খলা ও স্থিরতা ফিরিয়ে আনতে দ্রুত সাড়া দিয়েছে,” বলেছেন মন্ত্রীর মুখপাত্র লেফটেনেন্ট কর্নেল জাঁ লাদাওয়াদ।

মধ্য আফ্রিকীয় প্রজাতন্ত্রে নিরাপত্তা সমস্যা সম্পর্কিত একটি রেড ক্রস তথ্যচিত্র:

রেড ক্রস অসামরিক জনগণের মুখোমুখি হওয়া ঝুঁকিকে গুরুত্ব সহকারে তুলে ধরেছে। আইসি আরসি (আন্তর্জাতিক রেড ক্রস কমিটি) প্রতিনিধি গিয়োর্গিওস গিওর্গান্তাস যেমন ব্যাখ্যা করেছেন:

“কিছু কিছু মানুষ তাদের ঘরবাড়ি সম্পূর্ণরূপে ছেড়ে দিয়েছে, অন্যান্যরা থেকে গেলেও আরো সহিংসতার ভয়ে তারা দিনে সেখানে মাত্র কয়েক ঘন্টা কাটাচ্ছে।

সেলেকা জোটের নিয়ন্ত্রণে ব্রিয়া শহর

François Bozize, President  Central African Republic

ফ্রাঁসোয়া বোজিজে, মধ্য আফ্রিকীয় প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রপতি। উইকিপিডিয়া – পাবলিক ডোমেইন

তবে রাষ্ট্রপতি বোজিজের জন্যে হুমকিটি আরো প্রকট হচ্ছে। ১৮ই ডিসেম্বর তারিখে “সেলেকা” জোটের বিদ্রোহীরা ব্রিয়া শহরের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করেছে। আরএফআই [রেডিও ফ্রান্স ইন্টারন্যাশনাল, ফরাসী ভাষায়] যেমন রিপোর্ট করেছে:

Selon différentes sources, les rebelles ont attaqué Bria à l'arme lourde. Les Forces armées centrafricaines (FACA) ont ouvert le feu sur les combattants qui essayaient d'entrer dans la ville, puis ont abandonné la base de Bria [..] Des sources militaires disent que les rebelles se sont livrés à des pillages de magasins à Bria, et qu'ils ont été suivis de certains habitants qui tentent de profiter des pillages. Les différents combats qui ont eu lieu ont fait au moins 14 morts et des disparus côté gouvernemental.

বিভিন্ন সূত্র মতে, ভারী অস্ত্র ব্যবহার করে বিদ্রোহীরা ব্রিয়া আক্রমণ করেছে। শহর প্রবেশ করার চেষ্টা করলে মধ্য আফ্রিকীয় সশস্ত্র বাহিনী রাদের উপর গুলি চালানোর পর তারা ব্রিয়া ঘাঁটি পরিত্যাগ করে [..] সামরিক সূত্রগুলো বলছে যে বিদ্রোহীরা ব্রিয়ার কয়েকটি দোকান লুটপাট করে এবং কিছু কিছু স্থানীয় বাসিন্দারা বিদ্রোহীদের এই লুণ্ঠন থেকে লাভবান হওয়ার চেষ্টা করে। বিভিন্ন সংঘাতের পর সরকার পক্ষের ১৪জন মৃত এবং আরো কয়েকজন নিখোঁজ রয়েছে।

আফ্রিকুইনফোস আরো বলেছে:

La coalition Séléka a été créée en août par une aile dissidente de la Convention des patriotes pour la justice et la paix (CPJP), auteur de plusieurs attaques au nord de Bangui depuis septembre, et la Convention patriotique pour le salut wa kodro (CPSK) du “général” Dhaffane Mohamed Moussa.

সেপ্টেম্বর থেকে উত্তর বাঙ্গুইতে একাধিক আক্রমণের প্ররোচনা দানকারী ন্যায়বিচার ও শান্তির জন্যে দেশপ্রেমিকদের কনভেনশনের একটি ভিন্নমতাবলম্বী গোষ্ঠী এবং “জেনারেল” ধাফানে মোহাম্মদ মুসার মুক্তির জন্যে দেশপ্রেমী কনভেনশন মিলে (২০১২ সালের) আগস্ট মাসে সেলেকা জোটটি গঠন করেছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .