উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

সিরিয়াঃ সমকামী ব্লগার আমিনা আসলে এক বিবাহিত আমেরিকান পুরুষ

এই পোস্টটি সিরিয়া বিক্ষোভ ২০১১-এর উপর করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

জানা গেছে যে গে গার্ল ইন দামেস্ক নামক ব্লগার এক বিবাহিত আমেরিকান পুরুষ। আপাত দৃষ্টিতে মনে হচ্ছে, আমিনা আরাফকে সিরীয় কর্তৃপক্ষ ধরে নিয়ে গেছে বলে দাবী করে বিশ্বকে এই মিথ্যা ঘটনার পেছনে ছোটানোর ক্ষেত্রে তার বিশেষ কোন উদ্দেশ্য ছিল না। এক সপ্তাহ আগে তার এই ব্লগে এই এই বিষয়টি দাবী করা হয়।

এই ঘটনার পর সাতদিন পর্যন্ত থমাস ম্যাকমাস্টার নিরব থাকার সিদ্ধান্ত নেন। এদিকে একটিভিস্ট ব্লগার, এবং এমনকি কর্মকর্তারাও হন্যে হয়ে আমিনাকে খুঁজতে থাকে। সবাই ভয় পাচ্ছিল যে আমিনার ক্ষেত্রে সবচেয়ে খারাপ কিছু না ঘটে যায়। কিন্তু তখনই প্রশ্ন তৈরি হওয়া শুরু হতে থাকে যখন একজন নারী দাবী করে যে, তাকে আমিনা বলে চালানো হচ্ছে। সে জানায়, তার ব্যক্তিগত ফেসবুক একাউন্ট থেকে তার ছবি চুরি করে এই কাণ্ড ঘটানো হয়েছে। এ অনুসন্ধানে এই প্রশ্ন তৈরি হয় যে গে গার্ল ইন দামেস্ক বলে যাকে দাবী করা হচ্ছে, আদতে সে তা নয়।

গতকাল ইলেক্ট্রনিক ইন্তিফাদায় আলি আবু নিমাহ এবং বেনজামিন ডোহার্টি একসাথে এই রহস্যের খানিকটা জোড়া দেবার চেষ্টা করেছে। তারা ম্যাকমাস্টার-এর দিকে অঙ্গুলি নির্দেশ করে তাকে এই ব্লগের সম্ভব্য লেখক হিসেবে চিহ্নিত করে।

যখন আমরা বিশ্বাস করছি যে, এখানে যে সব তথ্য সংগৃহিত করা হয়েছে তা নিজস্ব অধিকারে করা হয়েছে, আমরা এর সাথে বেশ কিছু স্বাধীন উত্স থেকে বাড়তি আরো কিছু নিশ্চিত সংবাদ সংগ্রহ করেছি, যা আমরা প্রকাশ করেনি এবং এইসব সংবাদ আমাদের আত্মবিশ্বাস সুনিশ্চিত ভাবে বাড়িয়ে দিয়েছে। এই প্রতারণার পেছনে উক্ত ব্যক্তির উদ্দেশ্য বা তার পেছনে যে ছিল তাকে আমরা চিনি না।

নীচে যে তথ্য প্রদান করা হয়েছে তা জানাচ্ছে যে আমিনা নামক ব্লগার বাস্তবে দুটি চরিত্রের সাথে যুক্ত, তারা হচ্ছে টমাস (টম) জে ম্যাকমাস্টার এবং ব্রিট্টা ফরেলিচার, যারা বাস্তব জীবনে স্বামী স্ত্রী।

ইলেক্ট্রনিক ইন্তিফাদা আমিনার ব্যাপারে কথা বলার জন্য ম্যাকমাস্টারকে অনুরোধ জানিয়ে লিখেছিল, যার সে উত্তর করে এ ভাবে “ ধন্যবাদ, যেমনটা আমি আগেও বলেছি , আমি বা আমার স্ত্রী কেউ আমিনা নয়”।

ম্যাকমাস্টার উক্ত ব্লগের সব পোস্টের সব লেখার লেখক হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে, সে তার এক সংক্ষিপ্ত পোস্ট যার শিরোনাম “পাঠকের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা-তে” অবশেষে তার এই কাজের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেছে। সে বলেছে:

আমি বিশ্বাস করি না যে আমি কারো ক্ষতি করেছি-আমি মনে করি যে আমি এক গুরুত্বপুর্ণ বিষয়ের ক্ষেত্রে এক কণ্ঠস্বরের সৃষ্টি করেছি, যা আমি অত্যন্ত জোরালো ভাবে অনুভব করি।

অন্যেরা বিশ্বাস করে যে ম্যাকমাস্টারের বর্ণনা অত্র এলাকার একটিভিস্টদের কাজ, সামাজিক প্রচার মাধ্যম এবং এ বছর আরব বিপ্লবের সময় তা যে ভুমিকা রেখেছে এবং আরব ব্লগস্ফেয়ারের সকল কৃতিত্বকে নষ্ট করে ফেলবে। অনেকে উল্লেখ করেছে যে তার এই মশকরা সত্যিকারের একটিভিস্টদের যে প্রচারণার উদ্যোগ, সে সব থেকে মনোযোগ দুরে সরিয়ে দেবে এবং যে সমস্ত ব্লগার সেখানে বন্দী এবং হুমকীর সম্মুখীন এবং একই সাথে সিরিয়ার পুরুষ সমকামী সম্প্রদায়কে ঝুঁকির মুখে ঠেলে দেবে।

আমেরিকান-আরব গ্রুপ ব্লগ কাবোবফেস্ট-এ আলি আব্বাস এবং আসিয়া বৌয়ানায়ুচি এই লেখাটা পোস্ট করেছে, সেখানে তারা লিখেছে:

ম্যাকমাস্টার, তার সকল বড় আকারের সুবিধা নিয়ে এক বিবাহিত সাদা আমেরিকান পুরুষ হিসেবে (যে সমকামী নয়), যথাযথ এবং নিশ্চিতভাবে তার অবতার (ইন্টারনেটে নিজের পরিচয় নির্মাণের জন্য সৃষ্টি করা চরিত্র) আমিনাকে এক নারী সমকামী হিসেবে চিত্রিত করেছে, এবং এই কাজ করার মধ্য দিয়ে সে সিরিয়ার অসংখ্য সমকামী ব্যক্তির জীবন হুমকীর মুখে ফেলে দিয়েছে। জর্জিয়া/ এডিনবুর্গ/ তুরস্কের এক আরামদায়ক ঘরে বসে যারা এ ধরনের লেখা লেখে, তারা এর কারণে কোন ধরনের হুমকীর মুখে পড়ে না, এটি অজস্র শিথিলতা তৈরি করে যখন তার নির্ভরযোগ্যতা এবং গ্রহণযোগ্যতার বিষয়টি উঠে আসে। বলাই বাহুল্য তারপরেও এর শিকার বিশ্বের এই সব ম্যাকমাস্টাররা হবেন না। এক মিথ্যা রক্তপাত উদার নৈতিকতাকে আহত করে, কিন্তু তার শিকার হবেন সেই মাটির সন্তানরা, আমিনা যে মাটির প্রতিনিধিত্ব করতে ব্যর্থ হয়।

লেখকদ্বয় আরো লিখেছেন:

ম্যাকমাস্টারের দেরীতে আসা অলস ভীরু ক্ষমা প্রার্থনা এসে পৌছানো সত্বেও, আমিনার কখনো মধ্যপ্রাচ্যের সমকামী নারী সম্প্রদায়ের মঙ্গলের জন্য এক কাল্পনিক প্রতীক হয়ে উঠার চেষ্টা ছিল না। সে ছিল পশ্চিমা জগতের এক কল্পনা যার উদ্দেশ্য ছিল পশ্চিমের কাম উদ্দীপনা এবং সুড়সুড়ি প্রদান করা অনুভূতিকে জাগ্রত করা। এটা আসলে নব্য-প্রাচ্য বাদ, যা কেবল একটা ভৌগলিক অস্তিত্বের নতুন রুপ কল্পনা করাই নয়, তার সাথে নতুন মানব মানচিত্র আবিষ্কার করা।

ম্যাকমাস্টার এখানে বিস্তারিত এক লেখার মাধ্যমে ক্ষমা চেয়েছে, যা এই জোচ্চুরির কারণে যারা হয়েছে, তারা একে প্রত্যাখান করেছে, যার মধ্যে বৃটিশ-কুর্দি লেখিকা রুওয়াদা মুস্তাফাও রয়েছে, যে টুইট করেছে:

#আমিনাপ্রতারণা নামক ঘটনায় টম ম্যাকমাস্টার আবারো ক্ষমা প্রার্থনা করেছে: http://t.co/McfWpPj, যাতে সহানুভূতির লেশমাত্র নেই। এমন এক মানুষ যাকে অবজ্ঞা করা যায়।

আবু নুমিয়া এর সাথে যোগ করেছে:

আমার ধারনা এই যে #আমিনাপ্রতারণা নামক বিষয়টির পেছনে যে মানুষটি, তার এ ধরনের কাজের এক লম্বা ইতিহাস আছে, এবং তার ছলনার আশ্রয় নেওয়া বিষয়টি তার এই ধরা পড়ার কারণে বন্ধ হবে না।

এ্যান্টোন ইসা লিখেছে:

টম ম্যাকমাস্টার ব্লগ জগতের দুর্বলতার সুযোগ নিয়েছে, এমন এক এক মৌলিক সুবিধা, যার মাধ্যমে যে কেউ লেখা এবং তার মৌলিকত্ব দাবী করতে পারে।#আমিনা

এবং আহমেদ সিহাব-এলদিন গুরুত্ব প্রদান করছে:

নিশ্চয়, # আমিনা একটা প্রতারণা। কিন্তু আমরা তারপরেও ব্লগারদের কণ্ঠকে অন্য জায়গায় পৌছে দেবে, যেহেতু সিরিয়ায় প্রচার মাধ্যম প্রবেশ করতে পারে না।

পাঠকরা এই বিষয়ে প্রশ্ন করার কারণে, এন্ডি কারভিন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। তিনি লিখেছেন:

আমি প্রকাশ্যে @ড্যানিসিইটকে ধন্যবাদ জানাতে চাই, যে এক সপ্তাহ আগে #আমিনার বিষয় পাঠ করে তার সংশয় প্রকাশ করে আমার সাথে যোগাযোগ করেছে. তার লেখার কারণে আমার মাথায় এই বিষয়ে প্রশ্নের উদয় হয়।

এবং সব শেষে, আমি টুইটারে নীচের মন্তব্যটি করেছি:

আন্তর্জাতিক প্রচার মাধ্যম থেকে সারাদিন ধরে আমি যা সব প্রশ্ন সংগ্রহ করেছি: এতে যা পাওয়া যাচ্ছে # আমিনা, আমিনা নয়। এই বিষয়টি ব্লগারদের গ্রহণযোগ্যতার উপর কি রকম প্রভাব ফেলবে? এই ঘটনাটি সিরিয়ার সমকামী সম্প্রদায় এবং সারা আরব জাহানের উপর কি প্রভাব ফেলবে? এবং আরব ব্লগিং আন্দোলনের ক্ষেত্রে এটা কি ধরনের দুর্বলতা নির্দেশ করে? সত্যিকার অর্থে?……বিশ্বের কোন এক জায়গায় কিছু তারকা প্রতারক সিদ্ধান্ত নিয়েছিল যে তারা বিশ্বকে বোকা বানাবে…এখন এই বিষয়টি সিরিয়ার একটিভিস্ট এবং আরব ব্লগিং সম্প্রদায়ের গ্রহণযোগ্যতার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে; আরব পুরুষ এবং নারী সমকামী এবং তাদের বাস্তবতা এবং সর্বোপরি বিশাল আরব ব্লগ জগতের গ্রহণযোগ্যতা এখন প্রশ্নের সম্মুখীন? আমি কি কিছু একটা স্মরণ করতে পারছি না, নাকি আমার মস্তিষ্ক আমার সাথে খেলা করছে, এই পর্যায়ে এসে মাথা নিজে নত হতে অস্বীকার করছে, যেমনটা আমি দেখতে পাচ্ছি এ রকম একটা প্রতারকের জন্য এতটা সময়, শক্তি এবং চিন্তা ব্যায় করার ক্ষেত্রে কোন সম্পর্ক খুঁজে পাচ্ছি না, সত্যিকারের মানুষদের উপর অত্যাচার, তাদের বন্দী হয়ে থাকা এবং যারা সত্যিকারের বিপদের মধ্যে রয়েছে, তাদেরই গুরুত্ব পাওয়া উচিত। এই প্রতারকের এই অসৎ কাজ ক্ষমার অযোগ্য এবং তা এই ঘটনাকে অনেক বেশী ওজনদার করেছে এবং এ রকম এক ভয়াবহ বিপর্যয়ের সৃষ্টি করেছে এবং ইতিহাসের এই সন্ধিক্ষণে ঘোরানো পথ তৈরি করেছে, যা এমনকি ম্যাকমাস্টারের সকল কাজের চেয়ে আরো বেশী ক্ষমার অযোগ্য।

এই বিষয়ে আরো জানতে চাইলে পড়ুন:
ইথান জুকারম্যান-এর আন্ডারস্ট্যান্ডিং#আমিনা
স্টোরিফাই-এ লেখা এন্ডি কারভিন-এর টাইম লাইন অফ দি আমিনা সাগা

এই পোস্টটি সিরিয়া বিক্ষোভ ২০১১-এর উপর করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

থাম্বনেইল ছবি ফ্লিকার ব্যবহারকারী দি.স্পাউট-এর ( সিসি বাই এনসি-এসএ ২.০).

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .