বন্ধ করুন

গ্লোবাল ভয়েসেসকে শক্তিশালী করতে আমাদের সহায়তা করুন

আমরা ১৬৭টি দেশের উপর রিপোর্ট করি। আমরা ৩৫টি ভাষায় অনুবাদ করি। আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস।

প্রায় ৮০০ এর বেশী গ্লোবাল ভয়েসেস এর লেখক একসাথে কাজ করছে আপনার কাছে অজানা সব গল্প তুলে ধরতে। কিন্তু আমাদের পক্ষে একা সব করা কঠিন। আমাদের অনেকেই স্বেচ্ছাসেবক হলেও আমাদের সম্পাদক, প্রযুক্তি এবং অ্যাডভোকেসী প্রকল্প ও সামাজিক অনুষ্ঠানের ব্যয়ভারের মেটানোর জন্যে আপনাদের সাহায্য প্রয়োজন।

আমাদের সহায়তা করুন এখানে ক্লিক করে: »
GlobalVoices পাওয়া যাবে আরও জানুন »

সৌদি প্রতিবাদকারীদের রায় স্থগিত

এই পোস্টটি আমাদের সৌদি আরবে সংস্কারবাদীদের বিচার– এর বিশেষ কভারেজের একটি অংশ 

দুই জন বিশিষ্ট সৌদি মানবাধিকার কর্মী মোহাম্মাদ আল-কাহতানি এবং আব্দুল্লাহ আল-হামিদের মামলার রায় গত বুধবার, ১৫ জানুয়ারি তারিখে ঘোষণা করার কথা ছিল। কিন্তু রায়টি অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয়েছে।

অভিযুক্ত আন্দোলনকারী দুই জন “শাসক ও তাঁর উত্তরাধিকারীর প্রতি আনুগত্য স্বীকার না করা” এবং “দেশের উন্নতির পথে বাঁধা দেওয়া”র অভিযোগে বিচারের মুখোমুখি হয়েছেন। এটি রাজনৈতিক প্রতিবাদকারীদের অন্যতম একটি বিরল প্রকাশ্য বিচার হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। যেকারণে ব্যাপারটি গনমাধ্যম ও সমাজের মনোযোগ আকর্ষণে সক্ষম হয়েছে । পাশাপাশি এটি  প্রতিবাদকারীদের সত্যিকারের সংস্কারের জন্য আহ্বানের সুযোগ তৈরী করে দিয়েছে । এ ছাড়াও এটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে শত সহস্র বন্দীর নির্যাতন ও বিধিবহির্ভূত আটকাদেশ দেওয়ার জন্য কৈফিয়ত দিতে বাধ্য করবে।

টুইটারে আল-কাহতানি ঘোষণা করেছেনঃ

@এমএফকাতাহনিঃ রায়টির শুনানি #এসিপিরাহর বিচার অনির্দিষ্ট তারিখ পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে। এই মামলার অধিষ্ঠাতা বিচারক মামলা সম্পর্কে আমাদের জানাবেন বলে কথা দিয়েছেন। #সৌদি

২০১২ সালের জুন মাসে গোপনে ও আলাদা করে তাঁদের বিচার শুরু হয়েছে। প্রথম শুনানির পর বিচারক মামলা দু’টি একত্র করে দিয়েছেন। কয়েক ডজন প্রতিবাদকারী দ্বিতীয় শুনানির দিনে উপস্থিত ছিলেন। তাঁরা অধিবেশনের কিছু ছবিসহ সরাসরি টুইট করেছেন, যার বিরুদ্ধে পরে বিচারক আদালত অবমাননার ডিক্রি জারির নির্দেশ দিয়েছেন এবং আগামী অধিবেশনগুলো বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। পরবর্তী কিছু শুনানির সম্পূর্ণ সময় জুড়ে উভয় কর্মীই গোপনে কিছু করার কথা অস্বীকার করেছেন এবং তাদেরকে চুপ থাকার হুমকি দেওয়া হয়েছে। পঞ্চম শুনানি পর্যন্ত বিচারক অবশেষে মামলাটিকে প্রকাশ্য মামলায় পরিণত করে আত্মসমর্পণ করেছেন। এই বিচারে যোগ দেওয়া প্রতিবাদকারীদের সংখ্যা ক্রমান্বয়ে বেড়ে যাচ্ছে। ব্যাপারটি আন্তর্জাতিক মাধ্যম ও প্রতিবাদকারীদের মনোযোগ আকর্ষণ করছে।

সারা বিশ্বে যে গুটি কয়েক সম্পূর্ণ রাজতন্ত্র এখনো টিকে আছে তাঁদের মধ্যে সৌদি আরব একটি। সেখানে রেকর্ড সংখ্যক মানবাধিকার লংঘনের ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনার মধ্যে ত্রিশ হাজারেরও বেশী সংখ্যক লোককে বিধিবহির্ভূত দণ্ডাদেশ দেওয়ার ঘটনা অন্যতম। যখন থেকে রাষ্ট্রটি সরকারীভাবে শরিয়া আইন (এটির ব্যাখ্যা), বিচার ও শুনানির আদেশ দিয়েছে তখন থেকে শরিয়া বলতে কি বোঝায় তা নিয়ে ধর্মীয় বিতর্ক হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এই পোস্টটি আমাদের সৌদি আরবে সংস্কারবাদীদের বিচার– এর বিশেষ কভারেজের একটি অংশ 

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .


বিশ্বের অঞ্চলসমূহ

দেশ

ভাষা

বিশেষ টপিক

লেখাটির সাথে আছে