বন্ধ করুন

গ্লোবাল ভয়েসেসকে শক্তিশালী করতে আমাদের সহায়তা করুন

আমরা ১৬৭টি দেশের উপর রিপোর্ট করি। আমরা ৩৫টি ভাষায় অনুবাদ করি। আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস।

প্রায় ৮০০ এর বেশী গ্লোবাল ভয়েসেস এর লেখক একসাথে কাজ করছে আপনার কাছে অজানা সব গল্প তুলে ধরতে। কিন্তু আমাদের পক্ষে একা সব করা কঠিন। আমাদের অনেকেই স্বেচ্ছাসেবক হলেও আমাদের সম্পাদক, প্রযুক্তি এবং অ্যাডভোকেসী প্রকল্প ও সামাজিক অনুষ্ঠানের ব্যয়ভারের মেটানোর জন্যে আপনাদের সাহায্য প্রয়োজন।

আমাদের সহায়তা করুন এখানে ক্লিক করে: »
GlobalVoices পাওয়া যাবে আরও জানুন »

জাতীয় ধর্মঘট ডেকেছে হাঙ্গেরিয়ান শিক্ষার্থীরা

হাঙ্গেরিয়ান হাই স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীরা গত সপ্তাহের সোমবার থেকে শুক্রবার পর্যন্ত প্রতিবাদ জানিয়েছে। এই সপ্তাহেও তরুণরা চায় যে সরকার বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তির ক্ষেত্রে পরিমিত পর্যায়ে কোটা নির্ধারণ করবে এবং যেসব শিক্ষার্থী নিম্ন আয়ের পরিবার থেকে এসেছে তারাও উচ্চ শিক্ষার সুযোগ পাবে।

গত সোমবার হাজার হাজার শিক্ষার্থী হাঙ্গেরির রাজধানীর রাস্তায় নেমে এসেছিল। পার্লামেন্টের [হাঙ্গেরি] সামনে প্রতিবাদ করার পর তাঁদের ৫+১ দফা দাবির একটি ঘোষণা চাইতে তারা হাঙ্গেরিয়ান বেতারের সদরদপ্তরে যায়, যা গত সপ্তাহে এক ফোরামে তাঁরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিল।  কিটোসমারসিব্লগ রিপোর্ট [হাঙ্গেরি] করেছে যে, বেতারের উপস্থাপকেরা ইতোমধ্যে ছাত্রদের দাবি নিয়ে বেতারে রাত ৯টায় কথা বলেছে, কিন্তু দাবির তালিকাটি প্রচার করেনি।

বুদাপেস্টে ছাত্র প্রতিবাদ চলছে। ছবিটি তুলেছেন ডেভিড ফেরেঞ্জি, কপিরাইট @ ডেমোটিক্স (১২/১২/২০১২)।

পদযাত্রাটি থিয়েটার ও ফিল্ম আর্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি ফোরামের সাথে যেয়ে শেষ হয়, সেখানে নিচের ভিডিওটি রেকর্ড করা হয়েছে। উচ্চশিক্ষা কোটা কমিয়ে দেওয়ার কারণে যারা প্রভাবিত হয়েছে, গত বুধবার তাঁদের “জাতীয় উচ্চ শিক্ষা ধর্মঘট” [হাঙ্গেরি] এ যোগ দেওয়ার জন্য এই আহ্বান জানানো হয়েছে।

১:২৮ মিনিট সময়ের ভিডিওটি থেকে দেখা যায় ছাত্ররা চিৎকার করে বলছে, “আমরা আহ্বান করছি প্রতিটি সমব্যথী এবং ক্ষতিগ্রস্তকে আমাদের সাথে যোগ দিতে। [আমরা চাই] একটি সাধারণ ধর্মঘট। আমাদের ছাড়া কোন কিছু নয়।” বলে স্লোগান দিচ্ছে। এবং  শেষ বাক্যটি তাঁরা বহুবার পুনরাবৃত্তি করেছে।

হাঙ্গেরিয়ান উচ্চ শিক্ষা বিষয়ক সমস্যাগুলো সমাধান করতে অন্য কিছুর পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা  সিদ্ধান্ত নেওয়ার ব্যাপারে আরও পেশাদার একটি প্রক্রিয়া চায়। এই বিশেষ দাবিটির অনেকগুলো কারনের একটি হল শনিবারে ডাউনটাউনের একটি জনসমাগমে একদল তথাকথিত অপরিচিত ছাত্র নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর অরবান্সের আগমন – যারা নিঃসন্দেহে সাম্প্রতিক সময়ের প্রতিবাদী কোন ছাত্র ইউনিয়নের সদস্য নয়; অতঃপর তিনি বললেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি ক্ষেত্রে কোন কোটা থাকবেনা। মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী পরে তাঁর এই বক্তব্যটি ব্যাখ্যা করেন। তিনি বলেছেন যে, ছাত্রদেরকে “গুণগতমানের প্রয়োজনীয়তা” [হাঙ্গেরি] পূরণ করতে হবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .


বিশ্বের অঞ্চলসমূহ

দেশ

ভাষা

বিশেষ টপিক

লেখাটির সাথে আছে