বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

প্যারাগুয়েঃ ওয়ারেন্ট ছাড়াই আইএসপির নিউজ ওয়েবসাইট বন্ধ

Netizens in Paraguay. Picture By Librebus Cono Sur under a CC BY SA license.

প্যারাগুয়ের নেট নাগরিকগণ। ছবি সিসি বিওয়াই এসএ লাইসেন্সের অধীনে লাইব্রেবাস কোনো সুরের সৌজন্যে।

২০১২ এর ২৬ সেপ্টেম্বর প্যারাগুয়েতে বেসরকারি কোম্পানিগুলোর সেন্সরশিপ সম্পর্কিত কর্মকাণ্ড নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। দুটি ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান (আইএসপি) কোন বৈধ ওয়ারেন্ট ছাড়াই AbcColor.me ওয়েবসাইট বন্ধ করে দিয়েছে।

Disclaimer from AbcColor.me

AbcColor.me ওয়েবসাইটের চিত্র

এই বিতর্কিত ওয়েবসাইটটি একটি স্থানীয় পত্রিকা এবিসি কালারের পাঠকদের জন্য সৃষ্ট। যে কোন ব্যবহারকারী সংবাদ (মিথ্যা ও ব্যাঙ্গাত্মক খবর সমাদৃত) ও সংবাদ সম্পর্কিত ছবি পাঠাতে পারবেন। একবার খবর প্রকাশ হয়ে গেলে, ঐ খবরটি দৃশ্যত এবিসি কালার পত্রিকার মত দেখায় কিন্তু নিচে বলা থাকে যে সাইটটি ব্যবহারকারী কর্তৃক নির্মিত ও খবরটি মিথ্যা।

টেডিক এই অবস্থা নিয়ে প্রতিবেদন করেছে এবং আইএসপির বন্ধ হওয়াকে ভোক্তা অধিকার হরণ এবং ইন্টারনেট নিরপেক্ষ নীতিবিরুদ্ধ হিসেবে সমালোচনা করেছে।

যখন ব্যবহারকারীরা টাইগো আইএসপি থেকে ঐ সাইটে প্রবেশের চেষ্টা করেন তখন তারা একটি সতর্কীকরণ বার্তা পান, যেখানে সাইটটিকে ম্যালওয়্যার সফটওয়্যার বহনকারী হিসেবে দেখানো হয়েছে এবং সেখানে প্রবেশের অনুরোধকে প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। এটি মোবাইলেও ব্লক করা হয়েছে।

একটি কোম্পানির সেন্সরশিপের জন্য নেট নাগরিকদের হতাশ ও ক্ষুব্ধ হয়ে টুইটারে চাপ দেয়ার পর এমনকি আর্জেন্টিনার পাইরেট পার্টির সমর্থনের পর, আইএসপি থেকে ওয়েবসাইটটি খুলে দেয়া হয়েছে।

দি পারসোনাল আইএসপি এই বলে ক্ষমা চেয়েছে যে তারা ঐ ওয়েবসাইটটি ¨তাদের যান্ত্রিক ত্রুটির¨ ব্লক করেছে। টাইগো প্যারাগুয়েব্যবহারকারীদের কাছে ক্ষমা বা ব্যাখ্যা কোনটাই করে নি, তারা শুধু সাইটটি চালু করেছে।

২০১৩ সালের এপ্রিলে, আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে, সাবেক প্রেসিডেন্ট লুগোর অভিযোগের পর, দেশটির অস্থিতিশীল রাজনৈতিক পরিবেশে অনলাইনে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা একটি স্পর্শকাতর ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। এখন প্যারাগুইয়ান নাগরিকরা জানে যে তাদের আইএসপিগুলো এই প্রযুক্তির মাধ্যমে দ্রুত সাইটসমূহ যাচাইয়ের অধিকার রাখে। ভোক্তা ও নাগরিক হিসেবে, এসব ব্যাপারে প্রতিবাদ করা উচিত।

এই অনুচ্ছেদে @marsebu-কে তার ভূমিকার জন্য বিশেষ ধন্যবাদ।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .