বন্ধ করুন

গ্লোবাল ভয়েসেসকে শক্তিশালী করতে আমাদের সহায়তা করুন

আমরা ১৬৭টি দেশের উপর রিপোর্ট করি। আমরা ৩৫টি ভাষায় অনুবাদ করি। আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস।

প্রায় ৮০০ এর বেশী গ্লোবাল ভয়েসেস এর লেখক একসাথে কাজ করছে আপনার কাছে অজানা সব গল্প তুলে ধরতে। কিন্তু আমাদের পক্ষে একা সব করা কঠিন। আমাদের অনেকেই স্বেচ্ছাসেবক হলেও আমাদের সম্পাদক, প্রযুক্তি এবং অ্যাডভোকেসী প্রকল্প ও সামাজিক অনুষ্ঠানের ব্যয়ভারের মেটানোর জন্যে আপনাদের সাহায্য প্রয়োজন।

আমাদের সহায়তা করুন এখানে ক্লিক করে: »
GlobalVoices পাওয়া যাবে আরও জানুন »

গাজায় সামরিক অভিযানের বিরুদ্ধে ইজরায়েলীদের বিক্ষোভ

গতকাল তেল আবিবের হাবিমা স্কোয়ারে একটি ফেসবুক গোষ্ঠী শত শত ইজরায়েলীকে একসঙ্গে সংগঠিত করেছিল। গোষ্ঠীটি জনগণকে আহবান জানায় “নির্বাচনের যুদ্ধ প্রত্যাখ্যান কর! রাজনৈতিক চাতূরীর নামে মরতে বা মারতে চাই না।”

১৪ই নভেম্বর তারিখে ইজরায়েলী ড্রোনগুলো গাজা ভূ-খণ্ডে হামাস সামরিক নেতা আহমেদ আল-জাবারীকে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করে হত্যা করার পর থেকে হামাস এবং ইজরায়েলের মধ্যে সর্বশেষ গোলাগুলি বিনিময় শুরু হয়।

নিচের ১০-সেকেন্ডের ভিডিওটি যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভের অংশবিশেষ দেখাচ্ছে:

রনি মোর বিক্ষোভটির একটি ছবি টুইটারে পোস্ট করেছেন:

I shall not hate

তেল আবিবে একটি যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভের সময় বহণ করা একটি প্ল্যাকার্ডে লেখা রয়েছে: আমি ঘৃণা করবো না। টুইটারে ছবিটি ভাগাভাগি করেছেন @রনিমোর১

এখানে আরো ছবি পাওয়া যাবে।

অনেকেই এই অভিযানের পিছনের রাজনীতির সমালোচনা করছেন। জনপ্রিয়ভাবে ভাগাভাগি করা একটি ফেসবুক পোস্টে লিওর বাকালু লিখেছেন:

ארבע שנים כמעט לא עשו כלום, ופתאום נזכרו. ליבי עם תושבי הדרום ותושבי עזה שממשלת ישראל הפכה את המצוקה שלהם לתפאורת רקע לקמפיין בחירות

চার বছর অথচ তারা কিছুই করেনি, এবং হঠাৎই তাদের মনে পড়েছে। আমার হৃদয় দক্ষিণের এবং গাজা্র নাগরিকদের দুর্দশা-দুর্বিপাকের সঙ্গে, যাকে ইজরায়েলী সরকার তাদের নির্বাচনের প্রচারাভিযানে পরিণত করেছে।

তিনি গত ১৫ বছরে বিভিন্ন সামরিক অভিযান এবং নির্বাচনের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে এগুলোর সময় প্রদর্শন করা একটি চিত্র যোগ করেছেন। নিচে সেটা অনুদিত হয়েছে:

ইজরাইলী রক্ষী বাহিনীর অভিযান-নির্বাচন: সীট১

অপারেশন নাম

অভিযানের তারিখ

নির্বাচনের তারিখ

মেঘের মিনার – লক্ষ্যবস্তু গাজা, স্থল আক্রমণের প্রস্তুতি নভে. ২০১২ জানু. ২০১৩
সীসার ছাঁচ – আকাশ/সমুদ্রপথে লক্ষ্যবস্তু গাজা। সীমিত স্থল আক্রমণ। ডিসে. ২০০৮ ফেব্রু. ২০০৯
“মাকাত বারাক” – গাজা ভূ-খণ্ডে ধারাবাহিক আকাশ থেকে স্থল হামলা ফেব্রু. ২০০৬ মার্চ. ২০০৯
“ডিরেখ নেকুশা” – পশ্চিম তীরে শত শত লক্ষিত অভিযান জুন. ২০০২ ঞ্জানু. ২০০৩
“এনভে জা’ম” (ক্রোধের সুফল অভিযান) – লেবাননের বিরুদ্ধে ১৬ দিনের অভিযান এপ্রি. ১৯৯৬ মে ২৯৯৬

আল’আ ইউনিস যুদ্ধের পিছনের রাজনীতির সমালোচনা করেছেন:

החמאס עושה בשם האיסלאם את מה שביבי עושה בגלל הבחירות. שניהם שקרנים. לשניהם לא אכפת מהאזרח. ושניהם לא מייצגים אותי.

ובתור רופא שיניים אני אומר לכם: את שניהם צריך לעקור.

হামাস ইসলামের নামে যা করছে, বিবি (নেতানিয়াহু) নির্বাচনের কারণ তা করছে। দুটোই মিথ্যাবাদী। তাদের কেউই বেসামরিক জনগণের তোয়াক্কা করে না। এবং তাদের কেউই আমার প্রতিনিধিত্ব করে না।

একজন দন্ত্যচিকিৎসক হিসেবে আমি আপনাকে বলি: দুটোকেই উপড়ানো দরকার।

আজ জোসেফ ডানা কঠিনভাবে মিসাইল আক্রান্ত শহর এশকেলন থেকে রিপোর্ট করেছেন। তিনি একটি স্থল অভিযানের সম্ভাবনা সম্পর্কে একটি প্রতিক্রিয়া টুইট করেছেন::

@ইবনেজরা: বিমান আওক্রমণের সাইরেনের সময় এশকেলনের যে জনগণের সঙ্গে আমি কথা বলেছি তারা কোন স্থল আক্রমণ চায় না কারণ এটা ইজরায়েলের বৈধতার ক্ষতি করবে

ইজরায়েলীদের মধ্যে কিছু কিছু বিরোধিতা থাকলেও এসব মতামত এবং বিক্ষোভ খুব কমই মূলধারার মিডিয়ায় উঠে আসে। এলিজাবেথ ৎসু্রকভ নিচের টুইটটি পোস্ট করেছেন:

@এলইজরায়েল: ইজরায়েলী পত্রিকাগুলো ফিলিস্তিনী হতাহত সম্পর্কে রিপোর্ট এড়িয়ে যায় এবং কিছু কিছু ইজরায়েলী অভিযানের বিরুদ্ধে সেই সত্যতা সম্পর্কে রিপোর্ট করে না।

তিনি আরো বলেছেন:

@এলইজরায়েল: আপনারা যদি শুধু ইজরায়েলীদের কস্টের এবং সন্ত্রাসীদের সফল হত্যা অভিযানের খবর পেয়ে থাকেন, তাহলে আপনারা কেন এই অভিযানের বিরোধিতা করেন?

1 টি মন্তব্য

আলোচনায় যোগ দিন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .


বিশ্বের অঞ্চলসমূহ

দেশ

ভাষা

বিশেষ টপিক

লেখাটির সাথে আছে