উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

পাকিস্তান: সিন্ধি জাতীয়তাবাদী নেতার মৃত্যু্তে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া

২৩শে মার্চ করাচি (সিন্ধু প্রদেশ) শহরে পাকিস্তানি রাষ্ট্র থেকে সিন্ধুর স্বাধীনতার পক্ষে একটি বিশাল সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বশির খান কুরেশি, যিনি সারা এই সমাবেশটির জন্যে জনসমর্থন পেতে সিন্ধু জুড়ে প্রচার চালিয়েছিলেন তার নেতৃত্বে জয় সিন্ধ কওমি মাহায (সিন্ধু জাতীয় ফ্রন্ট দীর্ঘজীবী হোক [জেএসকিউএম]) বিরাট এই সমাবেশটি আয়োজন করেছিল।

জেএসকিউএমের বর্ণনা অনুসারে সমাবেশটির উদ্দেশ্য ছিল বিশ্বকে জানিয়ে দেয়া যে সিন্ধু স্বাধীনতা চায় পাকিস্তান থেকে, যার সাথে এটি একটি স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে ১৯৪৭ সালে যোগদান করেছিল। স্পষ্টতই সমাবেশটি ছিল পাকিস্তান বিরোধী এবং নিশ্চিতভাবেই পাকিস্তানি রাষ্ট্র এবং এর কাঠামোটিকে নাড়া দিয়েছিল।

কিন্তু আজ ভোর ৩:০০টার (পাকিস্তানী সময়) দিকে সিন্ধুর একটি ছোট শহর সাক্রান্দে বশির খান কুরেশির আকস্মিক এবং অকাল মৃত্যুর সংবাদটি পাওয়ার পর পুরো সিন্ধু এবং বেলুচিস্তান পরিণত বিষণ্ণ এবং শোকাচ্ছন্ন হয়ে পড়ে।

জেএসকিউএম এবং সিন্ধি জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের সদস্য ও শুভানুধ্যায়ীরা জনাব কুরেশির দুঃখজনক মৃত্যুতে তাদের দুঃখ প্রকাশ করতে সামাজিক মিডিয়ার আশ্রয় গ্রহণ করেন। সংবাদটি শোনার পরপরই আমি যা টুইট করেছিলাম:

@আমিররাজ  #জেএসকিউএম সভাপতি বশির কুরেশি হার্ট অ্যাটাক করে সাক্রান্দের একটি হাসপাতালে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন| একটি বড় আঘাত #সিন্ধি জাতীয়তাবাদের উপর!

আক্ষরিক অর্থেই টুইটারে তার মৃত্যুকে উল্লেখ করা টুইটের বন্যা বয়ে গিয়েছিল। এখানে সেগুলোর এক ঝলক রয়েছে:

@একেচিশ্তি জেএসকিউএম প্রধান বশির কুরেশি কেবলই কার্ডিয়াক আঘাতে মৃত্যুবরণ করেছেন। #সিন্ধু

@সিনেটর_বালুচ #সাংঘাতিকসিন্ধু এবং বেলুচিস্তানের নিপীড়ন জনগণের জন্যে খুবই দুঃখের দিন। আমরা হারালাম একজন বরণ্য বন্ধুকে #বশিরকুরেশিআরআইপি

@ফাহাদলাঘারি আজ সিন্ধি জাতীয় সংগ্রাম অনাথ হয়েছে। একটি যুগের অন্ত হয়েছে#জেএসকিউএম #সিন্ধু

@শেরএম_বিআরপি বশির কুরেশি ছিলেন #সিন্ধুর এক মহান নেতা। সিন্ধুর জনগণের জন্য একটি খুব বিষণ্ন দিন। #আরআইপি

@আব্দুলনিশাপুরী আমাদের #জেএসকিউএম সভাপতি বশির কুরেশির মৃত্যুতে আমাদের গভীরতম সমবেদনা। পাকিস্তানের বিশেষ করে সিন্ধুর জন্যে একটি দুঃখের দিন।

@মিরশোয়েব সিয়ান আপনার বেঁচে থাকা দরকার ছিল.. #আরআইপিবশিরখানকুরেশি একটি দুঃখের দিন সিন্ধু এবং #বেলুচিস্তানের জনগণের জন্যে

একইভাবে ফেসবুকেও তৎক্ষণাৎ স্ট্যাটাস আপডেট শুরু হয়ে যায়। সম্ভবতঃ ইফফি রাজই প্রথম আপডেট দেন এবং তার দেয়ালে লিখেন:

بشير خان قريشي دل جي دوري سبب انتقال ڪري ويو ….ٽي وي نيوز

বশির খান কুরেশি হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন…. টিভি সংবাদ(এসআইসি)

বিষ্ণু বক্স:

একটি খুবই বিষণ্ণ খবর, বশির কুরেশি আমাদের সাথে নেই…. (এসআইসি)

আইজাজ আলি:

অত্যন্ত দুঃখজনক খবর… আজ ‘জয়সিন্ধু‘র বশির খান কুরেশির রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।

ফাহাদ নিজামানী:

মর্মন্তুদ সংবাদ, সিন্ধু’র সাহসী নেতা জেএসকিউএম সভাপতি বশির খান কুরেশি হার্ট-অ্যাটাকে মারা গিয়েছেন।

জাদ্দাম সিন্ধু:

سين جسقم چيئرمين محترم بشير قريشيء جي لاڏاڻي تي ڏک جو اظهار ڪريون ٿا

জেএসকিউএমের সভাপতি বশির কুরেশির দুঃখজনক মৃত্যুর জন্যে আমরা আমাদের গভীরতম দুঃখ প্রকাশ করছি।

মুরাদ খান:

সিন্ধি চরমপন্থী জাতীয়তাবাদী বশির খান কুরেশি চলে গেলেন।

ইফফি রাজ বৃহৎ সিন্ধি জাতীয়তাবাদী দল জেএসকিউএমের নেতার মৃত্যুতে আরেকটি আবেগপূর্ণ মন্তব্য করেছেন:

حقيقت ۾ سنڌ ختم ٿي وئي

বস্তুতঃ সিন্ধু ধ্বংস হয়ে গিয়েছে (এসআইসি)

যাইহোক, বছরের পর বছর ধরে আজ পর্যন্ত পাকিস্তানি রাজনীতির অংশ হিসেবে জনাব কুরেশির আকস্মিক মৃত্যু- আবার সেটা করাচীর কেন্দ্রস্থলে সিন্ধুর স্বাধীনতার দাবি করে একটি সফল রাষ্ট্রবিরোধী সমাবেশ করার অব্যবহিত পরেই – হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু সংবাদের বিশ্বাসযোগ্যতা সম্পর্কে অনেক প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। শুরু থেকেই অনেকেই এই সংবাদের টুকরোটি মেনে নেননি। দলটির সাধারণ সম্পাদক জনাব আসিফ বালাদি যেমন বলেছেন তারা তাদেরকে ঘিরে বিভিন্ন ষড়যন্ত্রের একটি গুরুতর হুমকি অনুভব করছেন। জনাব কুরেশির মৃত্যুর সংবাদ প্রচারের পরপরই একটি সিন্ধি সংবাদ চ্যানেলকে তিনি একথা বলেন।

বশিরখান কুরেশি

সিন্ধুএবং বেলুচিস্তানের জাতীয়তাবাদী আন্দোলন সমর্থকরা এই‘রহস্যময়‘ মৃত্যুর পিছনে সন্দেহজনক কিছু দেখতে পাচ্ছেন।

@ভীঙ্গাসজে # বশিরকুরেশি শহীদ হয়েছেন, তার স্বাভাবিক মৃত্যু হয়নি। #সিন্ধু #বেলুচিস্তান #পাকিস্তান

@বালাচমারি সন্দেহজনক কিছু, নিশ্চয়ই। #সিন্ধু

শের মোহাম্মদ বুগতি টুইট করেছেন:

স্বৈরাচারীর মৃত্যু হলে তার শাসন শেষ হয়, শহীদের মৃত্যু হলে তার শাসন শুরু হয়।#জেএসকিউএম

জনাব কুরেশির আজীবন সংগ্রামকে সংকলিত করে এ.কে. চিশ্তি টুইট করেছেন:

বশির কুরেশির শেষ বচন ছিল “তুঝোঁ (তোমার) দেশ, মুঝোঁ (আমার) দেশ, সিন্ধু দেশ, সিন্ধুদেশ!“

একজন রাজনীতিবিদ হিসাবে নিশ্চিতভাবেই জনাব কুরেশির অনেক বন্ধু এবং অনেক শত্রুও ছিল! তবুও তারা সবাই একটি বিষয়ে একমত যে তার মৃত্যু সিন্ধি জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের জন্যে একটি আঘাত। তার জীবন – জেএসকিউএমের ছাত্র সংগঠন, জয় সিন্ধুছাত্র ফেডারেশনের একজন নেতা থেকে শুরু করে জেএসকিউএমের কেন্দ্রীয় নেতা হওয়া – পুরোটাই সিন্ধুদেশের (স্বাধীন সিন্ধুর প্রস্তাবিত নাম) স্বাধীনতার জন্যে রাজনৈতিক উত্তেজনা, সংগ্রাম এবং যুদ্ধে পরিপূর্ণ। এই বার্তাটি তিনি আরো উচ্চকিত করেছেন ২৩শে মার্চ, ২০১২ তারিখে করাচীর সফল স্বাধীনতার মিছিলে যা তাদের দলের পাকিস্তান রাষ্ট্র থেকে সিন্ধুর স্বাধীনতার দাবি পূণর্ব্যক্ত করেছে।

উপরের এগুলোই ছিল জেএসকিউএম নেতার মৃত্যুর পর একেবারে প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া – গল্পটি খোলাসা হওয়ার সাথে সাথে আরো অনেক নতুন দৃষ্টিভঙ্গি উন্মোচিত হবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .