বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

লিবিয়া: অস্ত্র বহন করার বিরুদ্ধে #অকুপাইত্রিপোলি নামক বিক্ষোভ

অস্ত্র বহন করার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন করার জন্য আজ লিবিয়ার নাগরিকরা দেশটির রাজধানী ত্রিপোলির রাস্তায় সমাবেত হয়। তারা বিখ্যাত শহীদ চত্বরে (মার্টিয়ার স্কোয়ার) এসে হাজির হয়, যার পূর্ব নাম ছিল সবুজ চত্বর বা গ্রীন স্কোয়ার। অনেক টুইটার ব্যবহারকারী #অকুপাইত্রিপোলি নামক বিক্ষোভ অনুষ্ঠানের উপর সরাসরি সংবাদ প্রদান করার জন্য সেখানে এসে হাজির হয়।

A banner from the event's Facebook page which reads: Tripoli welcomes you - without your weapons

এই অনুষ্ঠানের জন্য খোলা ফেসবুকের পাতার একটি ব্যানারের ছবি, যার শিরোনামঃ ত্রিপোলি আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছে- অস্ত্র বহন না করা অবস্থায়।

এবং এ বছর সারা আরব বিশ্বের অনেক জায়গায় অনুষ্ঠিত অনেক অনুষ্ঠানের মত আজকের এই শোভাযাত্রা, ত্রিপোলির স্থানীয় সময় রাত ১১.৩০ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়। যা এক ফেসবুকের একটি কার্যক্রমের মাধ্যমে সংগঠিত করা হয়, (আরবী ভাষায়। এই পাতায় বলা হচ্ছে যে, এই জমায়েত ত্রিপোলির স্থানীয় পরিষদের পৃষ্ঠপোষকতায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। ত্রিপোলির বাইরে থেকে আসা অস্ত্র এবং সশস্ত্র নাগরিকের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করার জন্য এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

টুইটারে এ্যাডাম বিক্ষোভের এই ছবি প্রদর্শন করেছে:

@ফর(৪)এ্যাডাম: অস্ত্র বহন করার বিরুদ্ধে #ত্রিপোলির শহীদ চত্বরে বিক্ষোভ প্রদর্শিত হচ্ছে। ৭ ডিসেম্বর, ২০১১। #লিবিয়া

এক প্রতিবাদকারী একটি পোস্টার বহন করছে, যে পোস্টারে লেখা রয়েছে: প্রিয় বিপ্লবীরা। অস্ত্র রেখে আসার এবং তার বদলে বই নিয়ে আসার জন্য তোমাদের ধন্যবাদ।

এক প্রতিবাদকারী একটি পোস্টার বহন করছে, যে পোস্টারে লেখা রয়েছে: প্রিয় বিপ্লবীরা। অস্ত্র রেখে আসার এবং তার বদলে বই নিয়ে আসার জন্য তোমাদের ধন্যবাদ। ছবির কৃতিত্ব টুইটারের @ ৪এ্যাডাম-এর।

আসিয়া বাসির আমরি একজন লিবীয় নাগরিক, যার বাস এখন যুক্তরাষ্ট্রে, তিনি টুইট করেছেন:

@লিবিয়ানফর (৪) লাইফ :#অকুপাইত্রিপোলি, নিজেই এক ইতিহাস। কখনোই #গাদ্দাফির অধীনে ছিল না। সেখানে অনেক জনতা তাদের মতামত প্রদান করার জন্য একত্রিত হত।#লিবিয়া#ফেব১৭

ঈসমাইল জামরিল এর সাথে যোগ করেছে:

@চেঞ্জইনলিবিয়া:আমার মা এর আগে কোনদিন শহীদ চত্বরে যায়নি, আজ সে #অকুপাইত্রিপোলি থেকে আমাকে ফোন করেছে। এখন সময় এসেছে আবার এক হয়ে যাবার, নিজেদের অস্ত্র জমা দেবার এবং জাতীয় এক সামরিক বাহিনী তৈরি করার।

এবং ত্রিপোলিনেশন সমাবেত জনতার আকার দেখে বিস্ময় প্রকাশ করেছে:

@ত্রিপোলিনেশনস:আমি যতটা ভেবেছিলাম #অকুপাইত্রিপোলি নামক বিক্ষোভ সমাবেশে তার চেয়ে নাগরিক সমাবেত হয়েছিল। ; http://pic.twitter.com/vD1IRIkb #লিবিয়া।

জনতার এক বিশাল সমাবেশ, যা অস্ত্র বহন করার বিরুদ্ধে প্রতিবাদে পরিণত হয়। ছবির কৃতিত্ব: টুইটারের আজিজ বেলহাজের।

লিবিয়ার অনেক টুইটার ব্যবহারকারী নিচের ছবিতে বহন করা পোস্টারকে মজার হিসেবে আবিস্কার করেছেন।

আজকের শোভাযাত্রায় এক মজার পোস্টার বহন করা হয়েছে, যেখানে বিপ্লবীদের নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে, তারা যেন তাদের অস্র জমা দেয় এবং প্রতিদিনের জীবনে ফিরে যায়। ছবির কৃতিত্ব টুইটারের @আলারেফ-এর।

আলারেফ হাসান লিখেছে [আরবী ভাষায়]:

من اللوحات الظريفة فعلاً ههههههه
@আলারেফ:আমি এ যাবত যতগুলো পোস্টার দেখেছি, তার মধ্যে এটাই সবচেয়ে মজার। হাহাহা।

@লিবিয়ান৪(ফর)লাইফ-এর সূত্র অনুসারে, এই পোস্টারের-এর ভাষা হচ্ছে:

তোমার মা তোমার অভাব অনুভব করছে আর তোমার পিতা চাইছে তুমি বাসায় ফিরে যাও! দারুণ (লোল)!

এবং এটা হচ্ছে একজন সশস্ত্র ব্যক্তির প্রতি আহ্বান, যেন সে তার অস্ত্র ত্যাগ করে এবং প্রতিদিনের জীবনে ফিরে যায়।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .